বিদ্যাপতি ও গোবিন্দদাস – কিছু প্রশ্নোত্তর

টার্গেট বাংলা গ্রুপে আয়োজিত SSC CLASS এ সদস্যদের দ্বারা আলোচিত নানা বিষয় থেকে উঠে আসা প্রশ্নোত্তর নিয়ে আমাদের আজকের প্রতিবেদন। আমাদের আজকের আলোচ্য বিদ্যাপতি ও গোবিন্দদাস । আজ আলোচনার দ্বিতীয় পর্ব।

প্রশ্নোত্তর –

১০১] “নহাই উঠল তীরে রাই কমলমুখী/ সমুখে হেরল বরকান।/ গুরুজন  সংগে লাজে ধনী নতমুখী কৈসনে হেরব বয়ান।। — কার কোন পর্যায়ের পদ ?
উঃ বিদ্যাপতি পূর্বরাগ

১০২] “একেলা গায়কের নহে তো গান” – এ কথা চণ্ডীদাসের পদ সম্পর্কে কে বলেন ?
উঃ অসিতকুমার বন্দ্যোপাধ্যায়

১০৩] সমালোচকেরা গোবিন্দদাসকে কোন পর্যায়ের দুর্বল কবি বলেছেন ?
উঃ বিরহ

১০৪] বঙ্কিমচন্দ্র কোন উপন্যাসে ব্রজবুলিতে পদ রচনা করেছেন ?
উঃ মৃণালিনী উপন্যাস

১০৫] বিষ্ণুপ্রিয়া কার কন্যা ?
উঃ সনাতন

১০৬] ছাপার অক্ষরে ‘ব্রজবুলি’ শব্দটি প্রথম কে প্রকাশ করেন ?
উঃ ঈশ্বরগুপ্ত

১০৭] “খন্ডনখণ্ড খাদ্য ” কার রচনা ?
উঃ শ্রীহট্ট

১০৮] বিদ্যাপতির কোন পর্যায়ের পদে রাধা চরিত্রের পূর্ণ বিকাশ হয়েছে ?
উঃ মাথুর

১০৯] “প্রায়শ্চিত্ত প্রকরণ” এর লেখক কে ?
উঃ ভট্ট ভবদেব

১১০] ‘ন্যায়কন্দলী’ কার রচনা ?

উঃ শ্রীধর ভট্ট

১১১] বৈষ্ণব পদের সর্ববৃহৎ সংকলন গ্রন্থের নাম কি ?

উঃ পদকল্পতরু

১১২] বৈষ্ণব সাহিত্য কি ?

উঃ বৈঞ্চব মতকে কেন্দ্র করে রচিত সাহিত্য

১১৩] বৈষ্ণব পদাবলী সাহিত্যর সূচনা ঘটে কবে ?

উঃ চর্তুদশ শতকে।

১১৪] বৈষ্ণব পদাবলী সাহিত্যের বিকাশ কাল কখন ?

উঃ ষোড়শ শতকে।

১১৫] শাক্ত পদাবলী কোন শতকের সাহিত্য ছিল ?

উঃ আঠারো শতক।

১১৬] বৈষ্ণব পদাবলী সাহিত্যের আদি কবি কে কে ?

উঃ বিদ্যাপতি ও চন্ডীদাস।

১১৭] বৈষ্ণব পদাবলী সাহিত্যের চতুষ্টয় কে কে ?

উঃ বিদ্যাপতি, চন্ডীদাস, জ্ঞানদাস ও গোবিন্দ দাস।

১১৮] বিদ্যাপতি ও চন্ডীদাস কোন শতকের কবি ?

উঃ চর্তুদশ শতক।

১১৯] জ্ঞানদাস ও গোবিন্দদাস কোন শতকের কবি ?

উঃ ষোড়শ শতক।

১২০] বিদ্যাপতি কোন ভাষায় বৈষ্ণব পদাবলী রচনা করেছেন ?

উঃ ব্রজবুলী ভাষায়।

১২১] বৈষ্ণব পদাবালী সাহিত্যের উল্লেখ্যযোগ্য কবি কে কে ?

উঃ বিদ্যাপতি, চন্ডীদাস, জ্ঞানদাস, গোবিন্দ দাস, যশোরাজ খান, চাঁদ কাজী, রামচন্দ বসু, বলরাম দাস, নরহরি দাস, বৃন্দাবন দাস, বংশীবদন, বাসুদেব, অনন্ত দাস, লোচন দাস, শেখ কবির, সৈয়দ সুলতান, আলাওল, দীন চন্ডীদাস, চন্দ্রশেখর, হরিদাস, শিবরাম, করম আলী, পীর মুহম্মদ, হীরামনি, ভবানন্দ প্রমুখ।হরহরি সরকার, ফতেহ পরমানন্দ, ঘনশ্যাম দাশ, গয়াস খান ।

১২১] বৈষ্ণব পদাবলী সাহিত্যের উল্লেখযোগ্য মুসলিম কবি কে কে ?

উঃ আলাওল, সৈয়দ সুলতান, আকবর, ফয়জুল্লাহ, আফজল, সালেহ বেগ, নাসির মাহমুদ, সৈয়দ আইনুদ্দীন, গয়াস খান, ফাজিল, নাসির মহম্মদ, আলীরজা, করম আলী।

১২২] বৈষ্ণব পদাবলীর প্রধান অবলম্বন কি কি ?

উঃ রাধাকৃষ্ণের প্রেমলীলা।

১২৩] অধিকাংশ বৈষ্ণব পদাবলী কোন ভাষায় রচিত হয়েছে ?

উঃ ব্রজবূলী ভাষায়।

১২৪] ‘খনে খনে নয়ন কোন অনু সরঈ। খনে খনে বসনধূলি তনু ভরঈ।’ – কার লেখা কোন পর্যায়ের পদ ?

উঃ বিদ্যাপতি বয়োসন্ধি

১২৫] ড, অসিতকুমার বন্দ্যোপাধ্যায় বিদ্যাপতির পদগুলিকে কয় ভাগে ভাগ করেছেন ?

উঃ ৫

আরো পড়ুন

১২৬] এমন কঠিন নারীর পরাণ বাহির নাহিক হয় – কার পদ? কোন পর্যায়ের ?

উঃ গোবিন্দ দাসের পদ। অনুরাগ পর্যায়ের

১২৭] বৈষ্ণব কাদের বলা হয় ?

উঃ বিষ্ণুর উপাসকদের

১২৮] “দুহু দিসে দারুদহনে জৈসে দগধই আকুল কীটপরাণ” – এখানে কোন অলংকার ব্যবহৃত হয়েছে ?

উঃ উপমা

১২৯] বিদ্যাপতির মেয়ের নাম কি ?

উঃ উল্লাহ

১৩০] ‘বিদ্যাপতির পদাবলী’ গ্রন্থটি কারা প্রকাশ  করেন ?

উঃ খগেন্দ্রনাথ মিত্র ও বিমানবিহারী মজুমদার।

১৩১] “বিদ্যাপতি চণ্ডীদাস শ্রীগীতগোবিন্দ / এই তিন গীত প্রভু কর এই আনন্দ।” –কোথায় আছে ?

উঃ চৈতন্যচরিতামৃত

১৩২] ‘সঙ্গীত দামোদর’ গ্রন্থের রচয়িতা কে ?

উঃ দামোদর সেন

১৩৩] বিদ্যাপতি কোন পর্যায়ের শ্রেষ্ঠ কবি ?

উঃ মাথুর

১৩৪] “বিদ্যাপতি বিচার” গ্রন্থটি কার লেখা ?

উঃ সতীশচন্দ্র রায়

১৩৫] ‘ষটসন্দর্ভ’ কার লেখা ?

উঃ জীব গোস্বামী

১৩৬] ‘অভিসার’ আর ‘অভিসারিকা’ কী ?

উঃ প্রিয় মিলনের উদ্দেশ্যে নায়ক বা নায়িকার পূর্বনিদিষ্ট সঙ্কেতকুঞ্জাভিগমন কে অভিসার। আর যে নায়িকা কান্তকে অভিসার করান কিংবা স্বয়ং অভিসার করেন তাকেই বলা হয় অভিসারিকা।

১৩৭] চারজন মুসলমান বৈষ্ণব পদ রচয়িতার নাম বল ?

উঃ নাসির মামুদ, সৈয়দ মুতুজা, আলীরাজা ও চাঁদ কাজী

১৩৮] ব্রজবুলি ভাষায় প্রথম পদ রচনা করেন কে ?

উঃ যশোরাজ খান

১৩৯] পদকল্পতরুতে গোবিন্দদাসের কটি পদ পাওয়া গেছে ?

উঃ ৪০৬

১৪০] বিদ্যাপতির পদে উল্লিখিত মুসলমান রাজার নাম কি ?

উঃ নুসরৎ শাহ

১৪১] বিদ্যাপতির পদর উল্লেখ প্রথম কোথায় পাওয়া যায় ?

উঃ রাজেন্দ্রলাল মিত্রের বঙ্গভাষার উৎপত্তি নামক প্রবন্ধে

১৪২] গোবিন্দদাসের সাথে চৈতন্যদেবের সাক্ষাৎ হয়েছিল কি ?

উঃ না

১৪৩] গোবিন্দদাসকে কে “কবিরাজ/কবীন্দ্র” উপাধি দেন ?

উঃ শ্রীজীব গোস্বামী

১৪৪] গোবিন্দদাসের পিতার বাড়ি কোথায় ?

উঃ কুমার নগরে

১৪৫] বিদ্যাপতি সংকৃতে কি কি গ্রন্থ লেখেন ?

উঃ দানবাক্যাবলী ও বিভাসাগর

১৪৬] “কোটি কুসুম শর” – কার পদ ?

উঃ গোবিন্দদাস

১৪৭] চৈতন্যদেব কার পদাবলী রসাস্বাদন করতেন ?

উঃ চন্ডীদাস

১৪৮] বিদ্যাপতি কার উপাসক ছিলেন ?

উঃ তিনি পঞ্চোপাসক ছিলেন। যথা শৈব, শাক্ত, সৌর, বৈষ্ণব এবং গাণপত্য।

১৪৯] গোবিন্দদাস বাঙালি কবি নন – এমন ধারণা কার ছিল ?

উঃ নগেন্দ্রনাথ গুপ্ত

১৫০] নৈমিষ অরণ্যে থাকার সময় বিদ্যাপতি কোন গ্রন্থ রচনা করেন ?

উঃ ভূপরিক্রমা

আরো পড়ুন

১৫১] কোন পর্যায়ে বিদ্যাপতি আর পদ রচনা করেন নি ?

উঃ নিবেদন

১৫২] চারজন বৈষ্ণব পদ রচয়িতার নাম বল ?

উঃ চণ্ডীদাস, জ্ঞানদাস, বিদ্যাপতি, গোবিন্দদাস

১৫৩] কে চণ্ডীদাসকে “কবিতাপস” বলেছেন ?

উঃ শংকরীপ্রসাদ বসু

১৫৪] কোন গ্রন্থে বিদ্যাপতি মনসার কথা উল্লেখ করেছেন ?

উঃ বাড়ীভক্তি তরঙ্গিণী

১৫৫] বিদ্যাপতির “মাথুর” পর্যায়ের পদের মূল রস কোনটি ?

উঃ শান্তরস

১৫৬] “শিবসিংহের মৃত্যুর পর বিদ্যাপতিকে মৌলিক কবিশিল্পী রূপে আর পাই না, পাই প্রধানতঃ স্মার্তপণ্ডিত মূর্তিতে।” – মন্তব্যটি কার ?

উঃ সুকুমার সেন

১৫৭] বিদ্যাপতি মিথিলার কবি একথা কে প্রথম প্রকাশ করেন ?

উঃ জন বিমস

১৫৮] বিদ্যাপতির পদাবলীর ভাষাকে বিকৃত মৈথিলী কে বলেছেন ?

উঃ রবীন্দ্রনাথ

১৫৯] কবিরাজ উপাধি কারা কাকে কেন দেন ?

উঃ বৈষ্ণব গোস্বামীরা গোবিন্দ দাসকে তাঁর সঙ্গীতমাধব পড়ে

১৬০] উজ্জ্বলনীলমণি গ্রন্থ কার রচিত ?

উঃ শ্রীরূপ গোস্বামী

১৬১] ‘অব মথুরাপুর মাধব গেল’ পদটির পদকর্তা কে ? পদটি কোন রস-পর্যায়ের ?

উঃ বিদ্যাপতির। মাথুর বা বিরহ পর্যায়ের পদ।

১৬২] বিদ্যাপতির ‘হরপা্রবতী’ বিষয়ক পদগুলি কি নামে পরিচিত ?

উঃ নাচারী ও মহেশবাণী

১৬৩] ‘মহাজন পদাবলী’ কার রচনা ? কে কবে তা প্রকাশ  করেন ?

উঃ বিদ্যাপতি। জগবন্ধু ভদ্র, ১৮৭৪ খিঃ

১৬৪] জ্ঞানদাস কার থেকে শিষ্যত্ব গ্রহন করেন ?

উঃ জাহ্নবী দেবী

১৬৫] রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর কোন প্রবন্ধে বিদ্যাপতিকে সুখের কবি বলেছেন ?

উঃ চণ্ডীদাস ও বিদ্যাপতি

১৬৬] সজনী ভালো করি পেখম ন ভালো – কার পদ ?

উঃ বিদ্যাপতি

১৬৭] “বিদ্যাপতি সাধারণ চাতুর্যের কবি” — কে বলেছেন ?

উঃ কালিদাস রায়

১৬৬] বিদ্যাপতির পদসংকলন কি নামে পরিচিত ?

উঃ মহাজন পদাবলী

১৬৭] বিদ্যাপতি কার নির্দেশে বিভাগসাগর, দানবাক্যাবলী কাব্য রচনা করেন ?

উঃ নরসিংহ ও ধীরমতি

১৬৮] ‘কবিরা পৃথিবী আঁকিয়াছেন এবং স্বর্গ আঁকিয়াছেন কিন্তু বৈষ্ণব কবিরা পৃথিবী ও স্বর্গ এক করিয়া দেখিয়াছেন’- কথাটি কার ?

উঃ রবীন্দ্রনাথ

১৬৯] বিদ্যাপতিকে “কবি সার্বভৌম” বলা হয় কেন ? কে বলেছেন?

উঃ বিদ্যাপতির কবিপ্রতিভা বিচিত্রমুখি, তাই তাঁকে ‘কবিসার্বভৌম’ বলা হয়। বিদ্যাপতিকে ‘কবিসার্বভৌম ‘বলেছেন শঙ্করীপ্রসাদ  বসু ।

১৭০] এ সখী হামারি দুখের নাহি ওর- কার কোন পর্যায়ের পদ ?

উঃ বিদ্যাপতি রচিত মাথুর পর্যায়ের পদ।

১৭১] বিদ্যাপতি সুখের কবি নাকি মাথুর পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ বিদ্যাপতি – এ সম্পর্কে কি বলবেন ?

উঃ রবীন্দ্রনাথ বিদ্যাপতিকে সুখের কবি বলেছেন। অথচ মাথুর পর্যায়ের শ্রেষ্ঠ পদকর্তা বিদ্যাপতি। রাধার বিরহের গভীরতা তার পদের মধ্যে এমন ভাবে ছড়িয়ে রয়েছে বলে তিনি মাথুর পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ। তাহলে তিনি যে শুধুমাত্র সুখের কবি নন তা তার মাথুর পর্যায়ের শ্রেষ্ঠত্বই প্রমাণ করে।

১৭২] কৃষ্ণের প্রতিনায়িকা কে ?

উঃ চন্দ্রাবলী

১৭৩] পূর্ববর্তী বৈষ্ণব কবিদের উদ্দেশ্যে মোট কয়টি বন্দনাপদ লিখেছিলেন গোবিন্দদাস ?

উঃ ৪

১৭৪] বিদ্যাপতির ধর্মমত উল্লেখ কর।

উঃ কুলধর্মে শৈব ছিলেন। আবার অনেক গবেষকের মতে, তিনি স্মার্ত ও পঞ্চোপাসক ছিলেন।

১৭৫] অষ্টাদশ শতাব্দীতে কোন কোন পদসংকলনে বিদ্যাপতির পদ সংকলিত হয়েছিল ?

উঃ বিশ্বনাথ চক্রবর্তীর ক্ষণদাগীতচিন্তামণি, রাধামোহন ঠাকুরের পদামৃতসমুদ্র এবং গোকুলানন্দ সেনের পদকল্পতরু

আরো পড়ুন

১৭৬] ব্রজবুলি ভাষার ভিত্তি কোন ভাষা ?

উঃ বাংলা ও মৈথিলীর মিশ্রণ

১৭৭] পদাবলী কথাটির উৎস কী ?

উঃ জয়দেবের গীতগোবিন্দ (মধূর কোমলকান্ত পদাবলীং)

১৭৮] “ব্রজবুলি” নামকরনের কারণ কী ?

উঃ ব্রজধামে বহুল প্রচলিত ও রাধা কৃষ্ণের ব্রজলীলা বর্ণিত, সেকারণেই।

১৭৯] বিদ্যাপতিকে সাধারণত চাতুর্যের কবি কে বলেছেন?

উঃ কবিশেখর কালিদাস রায়।

১৮০] জগবন্ধু ভদ্রের মতে গোবিন্দদাসের জন্ম ও মৃত্যু সাল উল্লেখ কর।

উঃ জন্ম  ১৫৩৭ এবং মৃত্যু ১৬১৫

১৮১] জয়দেব বিদ্যাপতি আর চন্ডীদাস / শ্রীকৃষ্ণচরিত্র তারা করিল প্রকাশ। কার লেখা, কোন গ্রন্থ ?

উঃ জয়ানন্দের চৈতন্যমঙ্গল

১৮২] গোবিন্দদাসের ‘সংগীতমাধব’ নাটক কোন ভাষায় লেখা ?

উঃ সংস্কৃত

১৮৩] বৈষ্ণব মতে রস কয় প্রকার ও কি কি?

উঃ শান্ত, দাস্য, সখ্য, মধুর, বাৎসল্য

১৮৪] বিদ্যাপতির পদ সংগ্রহে সবচেয়ে বড় কৃতিত্ব কার ?

উঃ জর্জ গিয়ারসন।

১৮৫] “বিদ্যাপতির পদাবলি মধুচক্রের মত, তার কুহরে কুহরে মাধুর্য্য” – কে কোথায় এই মন্তব্য করেছেন ?

উঃ কালিদাস রায়

SSC CLASS – by Target Bangla, Thanks to all of the participants

Leave a Reply